সোমবার , ২৩ আগস্ট ২০২১ | ১৮ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. অলৌকিক
  3. আইন আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আবহাওয়া
  6. আলোচিত
  7. কবিতা
  8. করোনাভাইরাস আপডেট
  9. ক্যাম্পাস
  10. খেলাধুলা
  11. গনমাধ্যম
  12. চাকুরী
  13. জাতীয়
  14. ধর্ম
  15. নারী ও শিশু

বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে রোগীর স্বজনদেরকে মারধরের অভিযোগ

প্রতিবেদক
এইচ এম ওবায়দুল হক
আগস্ট ২৩, ২০২১ ১২:১৯ পূর্বাহ্ণ

উৎপল মোহন্ত : বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালের চিকিৎসা ব্যবস্থা নিয়ে ফেসবুকে লাইভে সমালোচনামুলক বক্তব্য দেয়াকে কেন্দ্র করে ইন্টার্ণ চিকিৎসকরা সেখানে চিকিৎসাধীন অন্তঃসত্ত্বা এক নারীর স্বামী এবং তার ছোট ভাইয়ের সঙ্গে বিতণ্ডায় জড়িয়েছেন। শনিবার রাতের  ওই বিতণ্ডা থামাতে গিয়ে হাসপাতালে কর্তব্যরত পুলিশ সদস্যরাও আক্রান্ত হয়েছেন। পরে নিরাপত্তার অভাবে চিকিৎসাধীন অন্তঃসত্ত্বা জয়নব বেগমকে তার স্বজনরা ওই হাসপাতাল থেকে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে স্থানান্তর করেছেন।
প্রত্যক্ষদর্শী ও হাসপাতাল সূত্র জানায়, জেলার শাহাজাহানপুর উপজেলার নন্দগ্রাম এলাকার মোহাম্মাদ আছলামের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী জয়নব বেগমকে (৩০) গত বুধবার শজিমেক হাসপাতালে গাইনী ওয়ার্ডে ভর্তি হয়। তবে সেখানে যথাযথ চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে না—এমন অভিযোগ তুলে ওই নারীর স্বামী আছলাম শনিবার দুপুরে কর্তব্যরত চিকিৎসকদের কক্ষে গিয়ে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ফেসবুকে লাইভ করেন। যেহেতু গাইনি বিভাগে নারী চিকৎসকরাই বেশি থাকেন তাই এধরনের লাইভের বিষয়টি জানার পর সহকর্মী পুরুষ ইন্টার্ণ চিকিৎসকরা ক্ষিপ্ত হয়ে পড়েন।
এরপর আছলাম সন্ধ্যার পর গাইনি ওয়ার্ডে গেলে ইন্টার্ণ চিকিৎসকদের সঙ্গে তার বাক-বিতন্ডা হয়।অন্তঃসত্ত্বা নারীর স্বামী ও দেবরের অভিযোগ, ইন্টার্ণ চিকিৎসকরা তাদের মারধর করেছে। এমনকি হাসপাতালে কর্তব্যরত সাদা পোশাকে থাকা ৪ পুলিশ সদস্য পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে গেলে তারাও মারধরের শিকার হন। পরে হাসপাতাল প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ ঘটনাস্থলে গেলে রাত ৯টার পর পরিস্থিতি শান্ত হয়।
পরে তারা নিরাপত্তার অভাব বোধ করায়  অন্তঃসত্ত্বা জয়নবকে শজিমেক হাসপাতাল থেকে বের করে শহরের একটি ক্লিনিকে ভর্তি করেন। ওই ঘটনা সম্পর্কে অন্তঃসত্ত্বা নারী জয়নবের স্বামী আছলাম অভিযোগ করেছেন, শনিবার তার স্ত্রীর রক্তক্ষরণ হচ্ছিল। সেটি বন্ধের জন্য চিকিৎসকের কাছে সাহায্য চাইতে গেলে তাকে ও তার স্ত্রীকে সন্ধ্যার পর প্রায় এক ঘন্টা এক রুমে আটকিয়ে মারধর করা হয়। আছলামের ছোট ভাই জাকির হোসেন দাবি করেছেন, অন্তত ৫০ জন ইন্টার্ণ চিকিৎসক তাদের মারধর করেছে।
শজিমেক মেডিকেল হাসপাতাল সংলগ্ন ছিলিমপুর পুলিশ ফাঁড়ির ইন্সপেক্টর রফিকুল ইসলাম জানান, কর্তব্যরত ৪ পুলিশ সদস্য সামান্য আঘাত পেয়েছেন। তিনি বলেন, ‘সাদা পোশাকে ছিলেন বলেই তাদেরকে হয়তো চিনতে পারেনি।’
শজিমেক হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. আব্দুল ওয়াদুদ জানিয়েছেন, অন্তঃসত্ত্বা এক নারীর স্বামী দুপুরে হাসপাতালের চিকিৎসা সেবা নিয়ে ফেসবুকে লাইভ করেন। এনিয়েই মূলত সমস্যার সূত্রপাত। সন্ধ্যার পর তা নিয়ে আবারও হট্টগোলের সৃষ্টি হয়। চিকিৎসাধীন অন্তঃস্বত্ত্বা সেই নারীকে  স্বনজনরা হাসপাতাল থেকে নিয়ে গেছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি নিজে তার সঙ্গে দেখা করে প্রয়োজনীয় চিকিৎসার আশ্বাস দিই। কিন্তু তার স্বজনরা জানায় তারা নিরাপদ বোধ করছেন না। তাই চিকিৎসার জন্য অন্যত্র যেতে চান।’

সর্বশেষ - আলোচিত

আপনার জন্য নির্বাচিত

জালিয়াতি ও প্রতারণা করে রাসিক এর সুনাম নষ্ট করার অপচেষ্টা, তদন্ত সাপেক্ষে ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে -মেয়র লিটন

জোয়ারের অতিরিক্ত পানিতে নাজিরপুরের অর্ধশতাধীক স্কুল মাঠ প্লাবিত

শিবগঞ্জে ফেনসিডিলসহ র‌্যাবের হাতে যুবক আটক

বাগেরহাটে  দুই পক্ষের সংঘর্ষ, বাড়িঘর ভাংচুর-লুটপাট

কালিগঞ্জের বিষ্ণুপুর ইউনিয়নে নৌকার প্রতিকের নির্বাচনী অফিস উদ্বোধন

বোয়ালমারীতে র‌্যাবের হাতে আ’লীগ সভাপতির ছেলেসহ ৩ যুবলীগ নেতা মাদকসহ আটক 

রৌমারীতে সরিষার বাম্পার ফলন

কটিয়াদীতে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় এক স্বর্ণ ব্যবসায়ীর মৃত্যু

ঘোড়াঘাটে স্কুলের জমির ধান কাটার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলনঃ

পাবনায় চোরাই মােবাইল ফোন , দেশীয় অস্ত্র, মাদক দ্রব্য ও মােটর সাইকেলসহ আটক ৩

Design and Developed by BY AKATONMOY HOST BD