বুধবার , ৫ জানুয়ারি ২০২২ | ১৫ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. অলৌকিক
  3. আইন আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আবহাওয়া
  6. আলোচিত
  7. কবিতা
  8. করোনাভাইরাস আপডেট
  9. ক্যাম্পাস
  10. খেলাধুলা
  11. গনমাধ্যম
  12. চাকুরী
  13. জাতীয়
  14. ধর্ম
  15. নারী ও শিশু

বিলুপ্তির পথে খেজুর গাছ, হারিয়ে যাচ্ছে খেজুর রস

প্রতিবেদক
এইচ এম ওবায়দুল হক
জানুয়ারি ৫, ২০২২ ৫:৩১ অপরাহ্ণ

নোয়াখালী প্রতিনিধি : নোয়াখালী সদরে হারিয়ে যাচ্ছে আবহমান গ্রাম-বাংলার ঐতিহ্য সুস্বাদু খেজুরের রস। গৌরব আর ঐতিহ্যের প্রতীক মধুময় খেজুর গাছ এখন আর দেখা যাচ্ছে না বললেই চলে। দেখা মেলে না শীতের মৌসুম শুরু হতেই খেজুরের রস আহরণে গাছিদের তোড়জোড়।খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গ্রামীণ জনপদে শীতের উৎসব শুরু হতো খেজুর গাছের রস দিয়ে। শীতের মৌসুম শুরু হতেই সারা- বছর অযত্ন আর অবহেলায় বেড়ে ওঠা খেজুর গাছের কদর বেড়ে যেতো। বাড়িতে বাড়িতে লেগেই থাকতো পিঠাপুলির উৎসব। পাঠানো হতো আত্মীয় স্বজনদের বাড়িও।

তবে নোয়াখালী গ্রামাঞ্চলের সেই চিত্র এখন আর চোখে পড়ে না।  এখন আর আগের মত খেজুরের রসও নেই, নেই সে পিঠে পায়েসও। দিন দিন কমে যাচ্ছে গাছের সংখ্যাও। নেই নতুন গাছ রোপণের কোনো উদ্যোগ।সদর উপজেলার আন্ডার চর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম ঘুরে দেখা যায়, মুসা মিয়া নামে মাত্র একজন গাছি খেজুর গাছের ছাল পরিষ্কার করে তাতে মাটির হাড়ি বেঁধে দিচ্ছেন । এ সময় আলাপকালে তিনি বলেন, আগে আমাদের দারুণ কদর ছিল, মৌসুম শুরুর আগ থেকেই কথাবার্তা পাকা হতো কার কটি খেজুর গাছ কাটতে হবে। কিন্তু এখন আর কেউ ডাকে না।  আগের মতো তেমন খেজুর গাছও নেই। আগে সকাল বেলা খেজুরের রস সংগ্রহ করে বাজারে বিক্রি করতাম। আয়ও হতো ভালো।

আন্ডার চর গ্রামের আবুল বাসার (চনু)বলেন, আগে গ্রামে- গ্রামে খেজুর গাছের মাথায় মাটির হাঁড়ি বেঁধে রাখা দেখে মন জুড়িয়ে যেতো। মাত্র এক দশক আগেও উপজেলার গ্রামগুলোতে শীতের সকালে চোখে পড়তো রসের হাঁড়ি ও খেজুর গাছ কাটার সরঞ্জামসহ গাছির ব্যস্ততার দৃশ্য। সাত সকালে খেজুরের রস নিয়ে গাছিরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে হাঁকডাক দিতেন। এখন আর সে দৃশ্য চোখে পড়ে না।তিনি আরও বলেন, এই তো কয়েক বছর আগে এক হাঁড়ি খেজুর রস বিক্রি করতাম ৪০ টাকা।  এখন খেজুর গাছ না থাকায় সে রসের দাম বেড়ে হয়েছে ২০০ টাকা। অনেক সময় ঘরবাড়ি নির্মাণের জন্য খেজুরের গাছ কেটে ফেলা হয়। ফলে দিন দিন খেজুর গাছ কমে যাচ্ছে।

আন্ডার চর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃজসিম উদ্দিন বলেন, কাঁচা রসের পায়েস খাওয়ার কথা এখনো ভুলতে পারি না।তিনি আরও বলেন, সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগে বেশি বেশি খেজুর গাছ রোপণ করলে এর চাষ বাড়ানো সম্ভব।  একই সঙ্গে গাছিদের প্রশিক্ষণ ও স্বল্প সুদে ঋণ সহায়তা দিয়ে খেজুর রস আহরণে উৎসাহিত করাও প্রয়োজন।

সর্বশেষ - রংপুর বিভাগ

আপনার জন্য নির্বাচিত

কেএমপি’র মাদক বিরোধী অভিযানে চোলাই মদ,ইয়াবা,গাঁজাসহ গ্রেফতারঃ ৭ জন

সেনবাগে অপহৃত স্কুলছাত্রী কিশোরগঞ্জ থেকে উদ্ধার।

কুতুবদিয়ায় বিষপানে যুবকের আত্মহত্যার চেষ্টা

জামালপুরে প্রধানমন্ত্রীর ত্রান তহবিলের ১৯ লক্ষ ২০ হাজার টাকার চেক বিতরণ

সিংড়ায় মৌলিক সাক্ষরতা প্রকল্পের উদ্বোধন!

স্থানীয় জনসাধারণের মাঝে ৪০ বিজিবি’র মানবিক সহায়তা প্রদান

ফেনীতে স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা করে সন্তান নিয়ে পালালো স্ত্রী শিউলী

মঠবাড়িয়ায় জাতীয় শোক দিবসে দোয়া মিলাদ ও গণভোজ

ইন্দুরকানীতে বিদ্যুতের ফাঁদ পেতে মেয়ে ও জামাইকে হত্যাচেষ্টা, আহত নাতি

কুমিল্লার অরণ্যপুর এলাকা থেকে গাঁজা.বিদেশী মদ,ক্যান বিয়ারসহ আটক ২

Design and Developed by BY AKATONMOY HOST BD