বৃহস্পতিবার , ২৩ জুন ২০২২ | ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
  1. অর্থনীতি
  2. অলৌকিক
  3. আইন আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. আবহাওয়া
  6. আলোচিত
  7. কবিতা
  8. করোনাভাইরাস আপডেট
  9. ক্যাম্পাস
  10. খেলাধুলা
  11. গনমাধ্যম
  12. চাকুরী
  13. জাতীয়
  14. ধর্ম
  15. নারী ও শিশু

যুক্তরাজ্য যাচ্ছে নওগাঁর ‘ব্যানানা মাঙ্গো’

প্রতিবেদক
এইচ এম ওবায়দুল হক
জুন ২৩, ২০২২ ৪:২২ অপরাহ্ণ

জেলা সংবাদদাতা : দূর থেকে দেখলে চমক লেগে যাবে।  এ যেন আমগাছে কলা! দেখতে অনেকটা সাগর কলার মতো। আসলে কলা নয়, আমগাছে আমই ধরেছে। নাম তার কলা আম বা ব্যানানা ম্যাঙ্গো। দেশের সর্বত্র এ আম পাওয়া না গেলেও ইতোমধ্যেই বেশ সাড়া ফেলেছে নওগাঁর ব্যানানা ম্যাঙ্গো। থাইল্যান্ডভিত্তিক এই আম স্বাদে ও গন্ধে বেশ মনকাড়া।  দেখতে কলার মতো লম্বা, পাকার সময় দুধে আলতা মেশানোর মতো হলুদ থেকে গোলাপি রঙের, আঁটি চোকা পাতলা, রয়েছে প্রকৃত আমের স্বাদ। মিষ্টতা ১৯ -২০ টিএসএস এবং ৮৩ শতাংশই খাওয়ারযোগ্য। প্রচলিত জাতের চেয়ে এ আমে ফলন দ্বিগুণের বেশি।  নওগাঁ থেকে আম্রপালি আমের পর এবার বিদেশে রপ্তানি হচ্ছে ‘ব্যানানা ম্যাঙ্গো’।  যুক্তরাজ্যে রপ্তানির উদ্দেশ্যে তৃতীয় চালানে জেলার সাপাহার উপজেলার ‘বরেন্দ্র অ্যাগ্রো পার্ক’ থেকে ৫০০ কেজি ব্যানানা আম ও ৫০০ কেজি আম্রপালি আম ঢাকার শ্যামপুরে পাঠানো হয়েছে। সেখানে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে আমের চালান যুক্তরাজ্যে পৌঁছাবে।

গত ১৭ ও ২০ জুন সাপাহার উপজেলার ‘বরেন্দ্র অ্যাগ্রো পার্ক’ ও ‘রূপগ্রাম অ্যাগ্রো ফার্ম’- এর মালিক তরুণ কৃষি উদ্যোক্তা সোহেল রানা দুই চালানে আড়াই মেট্রিক টন আম্রপালি যুক্তরাজ্যে পাঠান। বাংলাদেশ ফুড অ্যান্ড ভেজিটেবল এক্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশনের মাধ্যমে তিনি যুক্তরাজ্যে আম রপ্তানি করেন। সাপাহার উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মুজিবর রহমান বলেন,  “বিষমুক্ত ও নিরাপদ আম চাষের জন্য উপজেলার ১৫ চাষিকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। মৌসুমজুড়েই এই চাষিদের বাগানে আম উৎপাদনের প্রক্রিয়া আমরা দেখভাল করেছি। এই চাষিদের উৎপাদিত ও ক্ষতিকর রাসায়নিকমুক্ত আম বিদেশে পাঠানোর জন্য উপযুক্ত।”

এই কৃষি কর্মকর্তা আরও বলেন, যে আম দেশের বাজারে দুই হাজার টাকা মণে বিক্রি হচ্ছে, সেই আম রপ্তানিকারকদের কাছে চার থেকে পাঁচ হাজার টাকা মণ দরে বিক্রি করছেন চাষিরা। তরুণ উদ্যোক্তা সোহেল রানা জানান, বিদেশে রপ্তানির জন্য তার বাগানে এ বছর আম্রপালি, ব্যানানা ম্যাঙ্গো, কাটিমন, বারি আম-৪ ও মিয়াজাকি জাতের গাছের আমে ফ্রুট ব্যাগিং করেছেন।  কারণ, রোগবালাইমুক্ত আমই বিদেশে যায়। এরপরও যেসব আম বিদেশে রপ্তানি করা হবে, সেগুলো ঢাকাতে পরীক্ষা করা হয়। যুক্তরাজ্য ছাড়াও ফিনল্যান্ড, ইতালি ও সুইডেনে আম পাঠানোর অর্ডার পেয়েছেন তিনি।

রপ্তানিযোগ্য আম উৎপাদনের বিষয়ে জানতে চাইলে বারির ঊর্ধ্বতন গবেষণা কর্মকর্তা শরফ উদ্দিন বলেন, “আম রপ্তানির জন্য কৃষকদের তিনটি শর্ত পূরণ করতে হবে।  সেগুলো হলো, যে জাতেরই হোক বা স্বাদ যেমনই হোক, আম দেখতে সুন্দর হতে হবে। রোগবালাইমুক্ত ও বালাইনাশকমুক্ত আম হতে হবে। যথাযথ নিয়মে আম সংগ্রহের ৪০ থেকে ৬০ দিন আগে বালাইনাশক স্প্রে বন্ধ করে দিয়ে আমে ফ্রুট ব্যাগিং করলে কৃষকদের এসব শর্ত পূরণ করা  সম্ভব।” শরফ উদ্দিন জানান, নওগাঁ, রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জসহ বেশ কিছু এলাকায় কোয়ারেন্টিন চেক হাউস, ফ্রুট প্যাকেজিং ও ভ্যাপার ট্রিটমেন্ট হাউস স্থাপন করার সিদ্ধান্ত সরকার ইতিমধ্যে গ্রহণ করেছে।

সর্বশেষ - আলোচিত

আপনার জন্য নির্বাচিত

পাবনার বেড়ায় মোবাইলে গজল শোনার অপরাধে এক মাদ্রাসার শিশু শিক্ষার্থীকে বর্বর নির্যাতনের অভিযোগ

নোয়াখালীতে ডাবল হত্যা মামলার আসামি গ্রেপ্তার

মাদারীপুরের কালকিনিতে ঔষধ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধিদের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত 

গুনে মানে অনন্য বিলম্বি ফল 

রামগঞ্জ উপজেলা ও পৌর সেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক কমিটির অনুমোধন

কুলিয়ারচর রামদী ইউনিয়নের প্রার্থীদের মাঝে প্রতীক বরাদ্দ 

রাজারহাটে একই নির্বাচনের তিন রকম ফল নিয়ে সংবাদ সম্মেলন

ভোলায় সড়ক দুর্ঘটনায়  প্রান গেলো এস এস সি পরীক্ষার্থী আরিফের স্বপ্ন ভেঙ্গে  চুরমার

গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া নেওয়ার সিদ্ধান্ত

৩ হাজার ১৮০ টাকায় ২ কেজি ৫০০ গ্রামের ইলিশ

Design and Developed by BY AKATONMOY HOST BD